BF এবং GF এর ক্রম বিবর্তন ও মানব জীবন 

বল্টু যখন ইয়াং যুবক ছিল তখন তার কলেজের এক সুন্দরী মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলো: আমাকে কি তোমার BF বানাবে?

মেয়েটি হেসে মজার ছলে বললো… BF এর মানে কি সেটা আগে আমাকে বলো!!

তখন বল্টু হেসে বললো কেনো! Best Friend!

এমন সুন্দর উত্তর শুনে মেয়েটি রাজি হয়ে গেলো!

ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে গভীর বন্ধুত্বের সৃষ্টি হলো।

:

কিছুদিন পর বল্টু আবার মেয়েটিকে বললো:

আমি কি তোমার BF হতে পারি?

মেয়েটি তখন জবাব দিলো: আমরা তো এখনো BF হয়েই আছি! আবার কিসের BF হবো বলো? বল্টু বললো এটা ওই BF নয়!

এবারের BF মানে Boy Friend!

মেয়েটির ইতোমধ্যে ভালোলেগে গিয়েছিলো বল্টুকে! এতপর তাদের মধ্যে প্রেম হয়, প্রেম থেকে পরিণয়!

:

বিয়ের কয়েক মাস পর মেয়েটি বল্টুকে বললো: শুনছো! তুমি বাবা হতে চলেছো! বল্টু অবাক হয়ে বললো তাই নাকি? তাহলে অবশেষে আমি তোমার BF হতে যাচ্ছি! মেয়েটি হেসে জিজ্ঞেস করলো: এই BF এর মানে কি আবার?

বল্টুও মৃদু হেসে জবাব দিলো Baby’s Father!

:

স্বামী স্ত্রী আর একটি ফুটফুটে বাচ্চা; সুন্দর সাজানো গোছানো একটি সংসার! অন্য সব সংসারের মতো এখানেও চলতো ছোটখাটো নানারকম ঝগড়াঝাটি, নানা খুনসুটি, মান অভিমান!

একদিন স্বামী বল্টু বললো শোন : সুখ দু:খ আমাদের জীবনেরই অংশ; ভালো সময় যেমন আছে, তেমনি খারাপ সময়ও সংসারে আসবে! আমাদের মধ্যে ভালো বোঝাপড়া তৈরী হলে তবেই হবে BF! স্ত্রী কিছুটা উৎসুক হয়ে জানতে চাইলো— এটা আবার কোন BF? স্বামী বল্টু দুই হাতে স্ত্রী আর সন্তানের হাত ধরে বললো Beautiful Family!

:

সংসারের বয়স তখন বছর দশেক হয়েছে; এরই মধ্যে একদিন স্বামী বল্টু বললো—তোমার সব চাওয়া পাওয়া সব সময় হয়তো পূরণ করতে পারবো না! কিন্তু আমি তোমাকে ভীষণ ভালোবাসি! তুমিও আমাকে ভালোবেসে BF হয়েই থেকো! স্ত্রী যথারীতি বিষ্মিত হয়ে জিজ্ঞেস করে এই BF এর মানে কি?

স্বামী বল্টু হেসে উত্তর দেয়—Be Forever! স্ত্রী স্বামী বল্টুর এমন পাগলামি দেখে হো হো করে হেসে দিলো!

:

সময় গড়িয়ে যায়, সন্তানও বড় হতে থাকে, ধীরে ধীরে বুড়ো হয় স্বামী-স্ত্রী; কবে যে চোখের সামনে শৈশব কৈশর যৌবন পার হয়ে গেলো কেউ টেরই পেলোনা!

:

একদিন বৃদ্ধ স্বামী বল্টুর শয্যার পাশে বসে আছে স্ত্রী, স্ত্রীর হাত ধরে স্বামী বল্টু বললো—মেঘে মেঘে বেলা তো অনেক দূর গড়িয়েছে; এবার বোধহয় সূর্যাস্তের পালা, আমি জানি না স্বামী হিসেবে তোমার প্রতি, আর বাবা হিসেবে সন্তানের প্রতি ঠিক কতোটুকু দায়িত্ব পালন করতে পেরেছি! হয়তো এই শয্যা থেকে আর ওঠাই হবেনা! যদি সত্যি সত্যি না উঠতে পারি আমাকে তুমি ক্ষমা করে দিও! আর তখন স্ত্রীর হাতটা বুকে নিয়ে স্মিত হেসে স্বামী বল্টু বললো—BF! স্ত্রীও বরাবরের মতোই জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে তাকায় স্বামীর দিকে! স্বামী তখন বললো এই BF এর মানে Bye Forever!

:

স্ত্রীর চোখে অশ্রু এসে যায়। হঠাৎ প্রথমবার BF বলার মুহূর্তটি মনে পড়ে যায় তার! বৃদ্ধার চোখে পুরানো স্মৃতিগুলি ভেসে উঠে; সে মনে মনে বলে কতো কঠিন জীবনের এই হিসেব নিকেশ! অথচ B আর F এই দুটি ইংরেজি বর্ণে কতো সহজভাবেই না জীবনের সব কঠিনত্বকে উড়িয়ে দিয়েছে এই মানুষটি! জীবিকার টানে ছেলেও বহুদূরে আজ! কেনো যেনো বৃদ্ধার শেকড় গেড়ে গেছে এখানে! সে চাইলেই সবকিছু ছেড়ে কোথাও যেতে পারে না এই সংসার ছেড়ে; দক্ষিণ পূর্ব দিকের জানালাটা খুললেই নানা গাছগাছালির ফাঁকে বৃদ্ধ বল্টুর কবরটা দেখা যায়; একদিন সেদিকে তাকিয়ে বৃদ্ধা ফিসফিস করে বলে—শুনছো! তোমার পাশের কবরটা তৈরি হয়ে গেছে; আমি শীঘ্রই আসছি!

তোমার BF হয়েই থাকবো চিরদিন! ও হ্যা এই BF টার মানে বলে দেই “Beside Forever” !

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *